চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

আলাউদ্দিন ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাচন স্থগিত রাখতে সিইসি’র কাছে প্রার্থী পেয়ারু’র আবেদন

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-৩০ ১৪:৪৬:৫৬ || আপডেট: ২০১৯-০৩-৩০ ১৪:৪৬:৫৬

আলাউদ্দিন :

আগামী ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিব্য চট্টগ্রামের লােহাগাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত রাখার জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে সংবাদ সম্মেলনের মধ্যদিয়ে আবেদন জানিয়েছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী (মটর সাইকেল প্রতিক) মাহমুদুল হক পেয়ারু।

চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে গতকাল শুক্রবার সকালে আয়ােজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আহবান জানান।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন , জনসেবাই আমার জীবনের একমাত্র ব্রত । নির্বাচনী প্রচারণায় নেমে বুঝতে পারি আমার ব্যাপক জনপ্রিয়তা দেখে প্রতিপক্ষ নানা ষড়যন্ত্রের জাল বুনছেন।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি আমাকে ঋণ খেলাপী ও ভােটার তালিকায় ২৫০ জন ভােটারের মধ্যে দুই জন ভােটারের স্বাক্ষর নেই অভিযােগে আমার মনােনয়নপত্র বাতিল করা হয়। আমি সংশ্লিষ্ট ব্যাংক থেকে প্রত্যয়ন পত্র এনে প্রমাণ করেছি আমি কোন ঋণ খেলাপী না ।

তিনি আরো বলেন, দুই জন ভােটারের স্বাক্ষর নেই অভিযােগটি ছিল ভিত্তিহীন । কারণ আমি ২৫৭ জন ভােটারের স্বাক্ষরযুক্ত তালিকা প্রদান করি জেলা প্রশাসক বরাবরে। ১মার্চ মনােনয়ন ফিরে পেতে আপিল দায়ের করলে ৩ মার্চের শুনানি শেষে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার আদেশ বহাল রাখা হয়।

 

প্রার্থী পিয়ারু উপান্তর হাইকোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করেন। পরবর্তী ৭ মার্চ রিটের শুনানি শেষে তার মনােনয়ন বৈধ বলে রায় দেন হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ। চেয়ারম্যান পদে যথানিয়মে নির্বাচন করতে আর কোন বাধা নেই বলে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আপিল কর্তৃপক্ষকে আদেশ প্রদান করেন।

 

আদেশপ্রাপ্ত হয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা তাকে মােটর সাইকেল প্রতীক বরাদ্দ দেন। তার মনােনয়ন বৈধতা নিয়ে এস এম ছলিমউদ্দিন নামক একজন প্রার্থী গত ১৯ মার্চ লিভ টু আপিল দায়ের করলে সুপ্রিম কোর্ট আগামী ৪ এপ্রিল শুনানির দিন ধার্য করা হয়। ফলে ২২ মার্চ চট্টগ্রাম জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা লােহাগাড়া উপজেলা নির্বাচন স্থগিত ঘােষণা করেন । কিন্তু পরবর্তীতে আপিল বিভাগের সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে জেলা রিটার্নি অফিসার ব্যালট সংশােধনপূর্বক আগামী ৩১ মার্চ উপজেলা নির্বাচনের নতুন তারিখ ঘােষণা করেছেন। পিয়ারু বলেন , সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ । কর্তৃক আগামী ৪ এপ্রিল শুনানির দিন ঘােষনা ধার্য করার প্রেক্ষিতে নিয়ম মাফিক জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা কোনভাবে নির্বাচনের তারিখ ঘােষনা করতে পারেন না । সংশােধিত ব্যালটে আমার প্রতীক মােটর সাইকেল বাদ দেওয়া । হয়েছে বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পেরে জেলা রিটার্নিং কার্যালয়ে যােগাযােগ করলে তারা কোন সদুত্তর দেননি । পিয়ারু বলেন , সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ঘােষিত আগামী ৪ এপ্রিল শুনানি পর্যন্ত নির্বাচন অপেক্ষা করা হােক । নয়তাে নির্বাচন গণতন্ত্রের জন্য হুমকি ও জাতির নিকট প্রশ্নবিদ্ধ হবে ।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *