চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

নীরব জসীম ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

আজ লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাচন : লড়াই হবে দ্বি-মুখী : কে হাসবে বিজয়ের হাসি ?

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-৩১ ০১:২৭:৩৩ || আপডেট: ২০১৯-০৩-৩১ ০১:৩০:২৩

নীরব জসীম : আজ ৩১মার্চ ৫ম উপজেলা পরিষদের চতুর্থ ধাপের নির্বাচন। গত ২৪ মার্চ লোহাগাড়ায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও আইনি জটিলতার কারণে নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। অবশেষে সব ধরনের আইনী জটিলতার অবসান ঘটিয়ে ৩১ মার্চ বহু প্রতিক্ষিত লোহাগাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ নির্বাচনকে ঘিরে উপজেলার মানুষের কৌতূহলের শেষ ছিলনা। নির্বাচন হচ্ছে কি হচ্ছেনা এমন প্রশ্ন ছিল সবার মুখে মুখে। অবশেষে সব জটিলতাকে অবসান ঘটিয়ে আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ৩১ মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা আসে। এর পর থেকে প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ বেড়ে যায়। শুরু হয় প্রচার-প্রচারণা । সবার মুখে মুখে একটি কথা কে হচ্ছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান? কে হাসবেন বিজয়ের হাসি? এবারের নির্বাচনে লড়াই হবে দ্বি-মুখী। আনারস প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী জিয়াউলহক চৌধুরী বাবুল ও নৌকা প্রতিকের খোরশেদ আলম চৌধুরী ।

অপরদিকে উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস.এম.ছলিম উদ্দিন খোকন চৌধুরী নির্বাচনে প্রতিদন্ধিতা করায় বিএনপি থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয়। এবং দলীয় ভাবে বিএনপি- জামায়াত নির্বাচনে অংশ গ্রহণ না করায় তাদের ভোটাররা ভোট কেন্দ্রে যাবেন না বলে এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। তাই তিনি প্রতিদন্ধিতায় আসবেনা বলে এমন ধারণা করছেন অভিজ্ঞমহল।
তিনটি পদে মোট প্রতিদন্ধি প্রার্থী ১১ জন। চেয়ারম্যান পদে ৩, ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ৪ ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ৪ জনপ্রার্থী প্রতিদন্ধিতা করছিলেন। চেয়ারম্যান পদে যারা প্রতিদন্ধিতা করছেন তারা হলেন, আনারস প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল হক চৌধুরী বাবুল, নৌকা প্রতীকে খোরশেদ আলম চৌধুরী, ও দোয়াত-কলম প্রতীকে এস.এম. ছলিম উদ্দিন খোকন চৌধুরী। ভাইস-চেয়ারম্যান পদে তালা প্রতীকের আরমান বাবু রুমেল, টিউবওয়েল প্রতীকের ইব্রাহিম কবির, চশমা প্রতীকের এম.এস মামুন ও মাইক প্রতীকের মিজানুর রহমান মিজান। মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে প্রজাপতি প্রতীকের পারভীন আক্তার, কলসী প্রতীকে জেসমিন আক্তার, ফুটবল প্রতীকে জেসমিন আক্তার এবং হাঁস প্রতীকের শাহিন আক্তার সানা।

নির্বাচনকে ঘিরে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। গতকাল লোহাগাড়া থানা কার্যালয়ে এক প্রেস-ব্রিপিং-এ পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য সর্বান্তক আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভোটাররা নির্বিঘ্নে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। পুরো উপজেলায় নির্বাচন কার্যক্রমে ১২শত পুলিশ সদস্য মোতায়েন করেছে । লোহাগাড়া থানা পুলিশের পুলিশ পরিদর্শক মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ভোট কেন্দ্রে কোন প্রার্থীর পক্ষে কেউ কোন অরাজকতা সৃষ্টি করলে কঠোর হস্তে দমন করা হবে। ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারবে।

উল্লেখ্য, ৯ ইউনিয়নে সর্বমোট ৬১টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। ভোটার সংখ্যা হচ্ছে ১৯০৪৭৪ জন। দায়িত্ব পালন করবেন ৬১ কেন্দ্রে ৬১জন প্রিজাইডিং অফিসার। প্রতি কেন্দ্রে পুলিশ থাকবে প্রায় ২০ জন করে। এছাড়াও ষ্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে ১০৪ জন বিজিবি এবং একুইভাবে র‌্যাব ও দায়িত্বে পালনে নিয়োজিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

অপরদিকে, নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, পুলিশের সহায়তায় প্রতিটি কেন্দ্রে থাকবে পর্যাপ্ত পরিমাণ আনসার ও ভিডিপি সদস্য-সদস্যা। নির্বাচনী পরিবেশ যাতে সুষ্ঠ, অবাধ ও নিরপেক্ষ থাকে তার জন্য আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের দায়িত্ব পালন করবে ১০জন এবং ১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *