চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২

ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে এক আদিবাসীর মৃত্যু, একই গ্রামের দুইজন হাসপাতাল ভর্তি

প্রকাশ: ২০১৯-০৫-১৬ ২২:১৮:৪১ || আপডেট: ২০১৯-০৫-১৬ ২২:১৮:৪১

 

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি:

রাঙ্গুনিয়ার দূর্গম আদিবাসী পল্লীতে ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁর নাম মংক্যাইয়া মারমা (১৮)। বাড়ি সরফভাটা ইউনিয়নের আদিবাসী গ্রাম বড়খোলা পাড়ায়। আক্রান্ত হয়েছে একই গ্রামের সুইক্যাপ্রু মারমা (১৫) ও পাইসাউ মারমা (২০)। দুজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক রবিউল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম শহর থেকে বাড়িতে চলে আসেন দুই ব্যক্তি। ডায়রিয়া নিয়ে সকালে তাঁরা হাসপাতালের আসেন । তারা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। দুই রোগী জানিয়েছেন তাদের সাথে একই গ্রামের মংক্যাইয়া মারমা নামে এক ব্যক্তি ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে বাড়িতে আসলে সকালে মারা যান।

আজ বৃহষ্পতিবার(১৬ মে) বিকাল ৩ টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পুরুষ ওয়ার্ডে গেলে সুইক্যাপ্রু মারমার স্বজন মানচিং মারমার সাথে কথা হয়। তিনি বলেন, রোববার চট্টগ্রাম নগরীর পতেঙ্গা এলাকায় জাহাজ থেকে মালামাল খালাসের শ্রমিক হিসেবে যান তিনজন। মঙ্গলবার থেকে তাদের তিনজনের ডায়রিয়া হয়। আজ সকালে অসুস্থ হয়ে বাড়িতে চলে আসলে সকালে বড়খোলা পাড়ার তিনজনের মধ্যে মংক্যাইয়া মারা যান।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানায়, গত এক সপ্তাহ ধরে গড়ে ২০/২৫ জন রোগী ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে ভর্তি থাকেন। বহিবির্ভাগে চিকিৎসা নিচ্ছেন প্রতিদিন গড়ে ১০০ থেকে ১৫০ জন। আজ বৃহষ্পতিবার বিকাল ৩ টা পর্যন্ত ৫০ শয্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫২ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে ১৭ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানতে চাইলে , উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ঋতু পরিবর্তনের কারনে ও অতিরিক্ত গরমে ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়েছে। সুস্থ থাকতে স্বাস্থ্য সচেতন হতে হবে। গরমে অযথা রোদে না যাওয়া , বেশি বেশি বিশুদ্ধ পানি পান করতে হবে। ”

ছবির ক্যাপশন- রাঙ্গুনিয়ায় ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আদিবাসী পল্লীর দুই রোগী। আজ বৃহষ্পতিবার ৩ টার দিকে পুরুষ ওয়ার্ড থেকে তোলা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *