চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০

admin

চকরিয়া পৌরশহরকে যানজটমুক্ত করতে ইউএনও’র সহায়তা চাইলেন মেয়র আলমগীর চৌধুরী

প্রকাশ: ২০১৯-১২-২৯ ২৩:৫৪:৩৬ || আপডেট: ২০১৯-১২-২৯ ২৩:৫৪:৪৪


আব্দুল্লাহ আল সাকিব, চকরিয়া :
ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানের মাধ্যমে চকরিয়া পৌরশহরের চিরিংগাকে যানজটমুক্ত করতে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সহায়তা চেয়ে অনুরোধপত্র দিয়েছেন পৌর মেয়র আলমগীর চৌধূরী। উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি ও পৌর পরিষদের সিদ্ধান্তের আলোকে রবিবার (২৯ ডিসেম্বর) পৌর মেয়র স্বাক্ষরিত এ অনুরোধ পত্রটি ইউএনও বরাবরে পাঠানো হয়।


লিখিত অনুরোধ পত্রে পৌর মেয়র উল্লেখ করেন, চকরিয়া পৌর সদরের প্রধান সড়কের চিরিংগায় পুরাতন এস আলম কাউন্টার সংলগ্ন চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে বাস কাউন্টার, লোকাল সিএনজি, টমটম, হাইয়েছ-মাইক্রোবাস স্থাপন এবং ফুটপাতে ভাসমান দোকান বসানো হয়েছে। যার ফলে কক্সবাজারগামী হাজার হাজার পর্যটন যাত্রীদের ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।

এছাড়া পৌর সদরের চিরিংগা মার্কেটের ব্যবসায়ীক কাজে, স্থানীয় জনসাধারণ ও দুর দুরান্ত থেকে আগত হাজার হাজার জনগণ চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। এসব ভোগান্তি নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন। এবিষয়ে ইতিপূর্বে উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি ও পৌর পরিষদের সভায় আলোচনার পর সিদ্ধান্ত হয় পৌরশহরের প্রধান সড়কের পুরাতন এস আলম কাউন্টার সংলগ্ন সকল বাস কাউন্টার বন্ধ থাকবে।

এছাড়া সকল ছারপোকা, টমটম ও সিএনজি স্ট্যান্ড ছিদ্দিক ফিলিং স্টেশন সংলগ্ন স্থানে এবং থানা রাস্তার মাথা এলাকায় স্থানান্তর করা হবে।
সভায় আরো সিদ্ধান্ত হয় পৌর সদরে চলাচলরত সকল টমটম সমুহ ভাই ভাই বোডিংয়ের সামনে থেকে সোসাইটি মসজিদের সামনে পর্যন্ত রাস্তার পশ্চিম পার্শ্বে চলাচল বন্ধ থাকিবে।

এছাড়া ফুটপাতের সড়কে কোন ধরনের ভাসমান দোকান বসতে পারবেনা। কিন্তু কোন পক্ষই এ নির্দেশনা না মানায় কক্সবাজারগামী হাজার হাজার পর্যটক ও পৌর সদররে কেনাকাটা করতে আসা হাজার হাজার জনগন চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। এমতাবস্থায় জনগনের ভোগান্তি লাগবে জনস্বার্থে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে পৌর শহরকে যানজটমুক্ত করতে উপজেলা প্রশাসন ও থানা প্রশাসনকে অনুরোধপত্র দিয়ে সহায়তা কামনা করেন পৌর মেয়র আলমগীর চৌধূরী।

চকরিয়া পৌর সভার মেয়র আলমগীর চৌধূরী বলেন, চকরিয়া পৌরশহরের চিরিংগাকে যানজনমুক্ত করতে ইতিপূর্বে দফায় দফায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানের পর কয়েকদিন পৌরশহর যানজট মুক্ত থাকলেও ফুটপাত দখল করে পুনরায় ভাসমান দোকান ও অবৈধ গাড়ি স্ট্যান্ড গড়ে তোলার কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে কক্সবাজারগামী হাজার হাজার পর্যটক ও পৌর সদররে কেনাকাটা করতে আসা হাজার হাজার জনগণ চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।

এমতাবস্থায় উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি ও পৌর পরিষদের সভার সিদ্ধান্ত মতে জনগণের ভোগান্তি লাগবে জনস্বার্থে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে পৌরশহরকে যানজটমুক্ত করতে উপজেলা প্রশাসন ও থানা প্রশাসনের সহায়তা চেয়ে অনুরোধপত্র দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *