চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল ২০২০

admin

স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউপির চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য পদের প্রাপ্ত ভোট

প্রকাশ: ২০১৯-১২-৩০ ২২:৫৩:২৬ || আপডেট: ২০১৯-১২-৩০ ২২:৫৫:০২

আব্বাস হোসাইন আফতাব, রাঙ্গুনিয়া :

রাঙ্গুনিয়ার মরিয়মনগর ও স্বনির্ভর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা। মরিয়মনগর ইউনিয়নে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগের মুজিবুল হক হিরু। তিনি ভোট পেয়েছেন ৮ হাজার ৬শত ১১ ভোট। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মো. সেলিম আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৪শত ভোট।

অন্যদিকে স্বনির্ভর ইউপি নির্বাচনে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নুর উল্লাহ। তিনি নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৫শত ৪ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রহিম উদ্দিন চৌধুরী টেলিফোন প্রতীকে পেয়েছেন ১ হাজার ৭শত ২১ ভোট।


এদিকে ইউপি সদস্য পদেও এই দুই ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে একাধিক প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছেন। এরমধ্যে মরিয়মনগরে প্রার্থী ছিল ৫৩ জন।

১ নম্বর ওয়ার্ডে ৬ জন প্রার্থীর মধ্যে ৮০২ ভোট পেয়ে জয় পেয়েছে মোহাম্মদ ইসমাইল (ফুটবল)। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাহাঙ্গীর আলম পেয়েছে ৭৪৩ ভোট।

২ নম্বর ওয়ার্ডে ৮ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৪০৯ ভোট পেয়ে এনামুল করিম সিকদার (তালা)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. ওমর ফারুক পেয়েছেন ৩৯৪ ভোট।

৩ নম্বর ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩০৫ ভোট পেয়ে মো. ওবাইদুল হক (ফুটবল)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. নুরুল আমিন পেয়েছে ৩০৩ ভোট।

৪ নম্বর ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩৪৮ ভোট পেয়ে সিরাজুল ইসলাম (বৈদ্যুতিক পাখা)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. সাইফুল ইসলাম পেয়েছেন ৩৪৫ ভোট।

৫ নম্বর ওয়ার্ডে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩৭৬ ভোট পেয়ে শামসুল আলম (তালা)। তার নিকটতম প্রার্থী পেয়েছেন মো. নাছের উদ্দিন পেয়েছেন ১৬৯ ভোট।

৬ নম্বর ওয়ার্ডে ৮ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ২৮৯ ভোট পেয়ে মো. বেলাল হোসেন (বৈদ্যুতিক পাখা)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. হারুন রশিদ পেয়েছেন ২৫৫ ভোট।

৭ নম্বর ওয়ার্ডে ৯ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩০৯ ভোট পেয়ে জাহাঙ্গীর আলম (মোরগ)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. জাফর উদ্দিন ও জেবর মুল্লুক দু’জনেই পেয়েছেন ১৮৫ ভোট।

৮ নম্বর ওয়ার্ডে ৬ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ১৭২ ভোট পেয়ে মো. রেজাউল করিম (টিউবওয়েল)। তার নিকটতম প্রার্থী এমদাদুল ইসলাম পেয়েছেন ১৫৬ ভোট।

এবং ৯ নম্বর ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩২২ ভোট পেয়ে এরশাদুর রহমান (মোরগ)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. ইকবাল হোসেন পেয়েছেন ২৬০ ভোট।


এছাড়া মরিয়মনগর ইউনিয়নে সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য পদে ৮ জন প্রার্থীর মধ্যে ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডে জয় পেয়েছে ২৪৮০ ভোট পেয়ে ইয়াছমিন আরা বেগম (বই)। তার নিকটতম প্রার্থী রুবী আক্তার পেয়েছেন ১৬৭৬ ভোট।

৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডে জয় পেয়েছে ১২৭৬ ভোট পেয়ে রহিমা আক্তার (বই)। তার নিকটতম প্রার্থী নুর আয়শা বেগম পেয়েছেন ৭৫২ ভোট।

এবং ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে জয় পেয়েছে ১৪৫৯ ভোট পেয়ে জয়তুন নুর বেগম (মাইক)। তার নিকটতম প্রার্থী পেয়েছেন ৬২৭ ভো
স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নের নির্বাচনে ইউপি সদস্য পদে ৪০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল।

১ নম্বর ওয়ার্ডে ২ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৪৯৬ ভোট পেয়ে মো. সেকান্দর (মোরগ)। তার নিকটতম প্রার্থী সনজিত কর্মকার পেয়েছে ৩১৮ ভোট।

২ নম্বর ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩৩৮ ভোট পেয়ে নুরুল আবছার (মোরগ)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. মহসিন পেয়েছেন ২৫১ ভোট।

৩ নম্বর ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩৮৮ ভোট পেয়ে রমেন্দ্র লাল দে (তালা)। তার নিকটতম প্রার্থী সুবিমল বিশ্বাস পেয়েছেন ২৬৮ ভোট।

৪ নম্বর ওয়ার্ডে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩৭৩ ভোট পেয়ে পেয়ে তাপস চক্রবর্ত্তী (বৈদ্যুতিক পাকা)। তার নিকটতম প্রার্থী প্রবীর সাহা পেয়েছেন ২৮৬ ভোট।

৫ নম্বর ওয়ার্ডে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ১৮৪ ভোট পেয়ে মো. বাদশা আলম (মোরগ)। তার নিকটতম প্রার্থী পেয়েছেন শামসুল আলম পেয়েছেন ১৮১ ভোট।

৬ নম্বর ওয়ার্ডে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ৩০৪ ভোট পেয়ে অভিজিৎ দে (তালা)। তার নিকটতম প্রার্থী ত্রিবিদ কুমার দে পেয়েছেন ২৩৬ ভোট।

৭ নম্বর ওয়ার্ডে ৮ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ২৫০ ভোট পেয়ে মো. সেলিম (ফুটবল)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. খোরশেদ আলম পেয়েছেন ১২২ ভোট।

৮ নম্বর ওয়ার্ডে ৬ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ২০১ ভোট পেয়ে মো. আবদুল গফুর (মোরগ)। তার নিকটতম প্রার্থী মো. ইসমাইল সিকদার পেয়েছেন ১৪১ ভোট।

এবং ৯ নম্বর ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে জয় পেয়েছে ২৫৩ ভোট পেয়ে তাপস সাহা (ফুটবল)। তার নিকটতম প্রার্থী প্রাঞ্জল সাহা পেয়েছেন ১৬৭ ভোট।

এছাড়া স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়ায় সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য পদে ৮ জন প্রার্থীর মধ্যে ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডে জয় পেয়েছে ১১৫২ ভোট পেয়ে দিপ্তী কর্মকার (মাইক)। তার নিকটতম প্রার্থী শেলু আক্তার পেয়েছেন ৮৩৬ ভোট।

৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডে জয় পেয়েছে ১১২২ ভোট পেয়ে খুরশিদা বেগম (বই)। তার নিকটতম প্রার্থী সরবালা দে পেয়েছেন ৯২৮ ভোট।

এবং ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে জয় পেয়েছে ১৪৪৩ ভোট পেয়ে জেরিনা আক্তার (বই)। তার নিকটতম প্রার্থী নুর নাহার বেগম পেয়েছেন ২৭৭ ভোট। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা অরুন উদয় ত্রিপুরা নির্বাচনের এই ফলাফল ঘোষণা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *