চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আব্দুল্লাহ মনির, টেকনাফ(কক্সবাজার) প্রতিনিধি

টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে মাদক কারবারী নিহত

প্রকাশ: ২০২০-০১-২৬ ১২:০৯:১৭ || আপডেট: ২০২০-০১-২৬ ১২:১০:০২

আব্দুল্লাহ মনির, টেকনাফ :

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মোঃ নাসির(৩০) নামে এক মাদক কারবারী নিহত হয়েছেন। এসময় ৩টি দেশীয় তৈরি এলজি,১২ রাউন্ড তাজা কাতুজ, ১৬ রাউন্ড কার্তুজের খোসা ও ১০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

রবিবার গভীর রাতে উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের পূর্ব সাতঘরিয়া পাড়া এলাকার দইল্যা খালের পাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মো: নাসির হলেন, উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের পূর্ব সাতঘরিয়া পাড়া এলাকার জালাল আহম্মদের ছেলে। সে চিহ্নিত একজন মাদক কারবারি বলে দাবি পুলিশের।

এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়। তারা হলেন, এএস আই অহিদ উল্লাহ, কনস্টেবল আব্দু শুক্কুর ও মো: হেলাল।

রবিবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ এক বার্তায় এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ওসি বলেন, শনিবার রাতে বিপুল পরিমান ইয়াবা মিয়ানমার হইতে সংগ্রহ করার গোপন সংবাদে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে টেকনাফের হ্নীলা ইউপিস্থ গালস্ স্কুলের সামনে থেকে মো: নাসিরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

পরে তার স্বীকারোক্তীতে মজুদকৃত ইয়াবার চালান উদ্ধারে হোয়াইক্যং ইউপিস্থ পুর্ব সাত ঘড়িয়াপাড়া জৈনক রৌশন আলী মেম্বার এর বসতবাড়ীর পুর্ব পাশে অনুমাণ ২০০গজ পুর্বে দইল্যা খালের পাড়ে ইয়াবা,অস্ত্র মজুদ এবং সহযোগী ইয়াবা ব্যবসায়ীরা অবস্থানের খবরে আমার নেতৃত্বে অভিযানে গেলে ইয়াবা কারবারিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। কিছুক্ষণ গুলিবিনিময়ের পর ইয়াবা কারবারিরা পালিয়ে যায়।

পরে ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ইয়াবাসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। পরে নিহত মাদক কারবারীর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচেছ বলে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক শুভ দেব বলেন, 

গুলিবিদ্ধ  এক ব্যক্তিকে পুলিশ সদস্যরা নিয়ে আসেন। তার শরীরে গুলির আঘাত রয়েছে এবং আহত পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে

এদিকে ২০১৮ সালের মে মাসে শুরু হওয়া মাদকবিরোধী অভিযানে চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত মোট ২১৮ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। তার মধ্যে ৬৩ জন রোহিঙ্গা রয়েছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *