চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০

মিজবাউল হক চকরিয়া অফিস

খুটাখালীতে বনবিভাগের পাহাড় কেটে অবৈধ বসতবাড়ি নির্মাণ

প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৩ ২২:২২:১৯ || আপডেট: ২০২০-০৩-২৩ ২২:২২:২৩

স্টাফ রিপোর্টার, বীর কন্ঠ : নির্বিচারের চলছে পাহাড় কেটে অবৈধভাবে বসতি নির্মাণ। দিনের পর দিন এভাবে বনবিভাগের পাহাড় কেটে বনভূমি জবর দখল পূর্বক অবৈধ বসতি গড়ে উঠলেও বনবিভাগের সংশ্লিষ্টরা অনেকটা নির্বিকার বললে চলে। কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের খুটাখালী রেঞ্জের অধীনে বনভুমিতে প্রকাশ্য চলছে এসব ঘটনা। সরেজমিনে দেখা গেছে, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের নিকটে কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের খুটাখালী ফুলছড়ি রেঞ্জর অধীনে খুটাখালী নয়াপাড়ায় স্থানীয় একটি প্রভাবশালী ভুমিদস্যূ চক্র প্রথমে বিশাল আকারের একটি বনভুমি জবর দখলে নেয়। বিগত একপক্ষকাল পূর্বে প্রায় ৩০শতক বনভুমি জবরদখলে নেয় স্থানীয় আহমদ উল্লাহর পুত্র জিয়াবুল হক। দখলে নেয়ার পর প্রতিদিন রাতেই ৫-১০জন শ্রমিক দিয়ে পাহাড় কেটে সমান করে। অভিযোগ উঠে-বনবিভাগের ফুলছড়ি রেঞ্জ এর সংশ্লিষ্ট কর্তাদের ম্যানেজ করে শুক্রবার টিন দিয়ে দখল দেখাতে সাময়িক বসতি নির্মাণ করে জিয়াবুল। এলাকার লোকজনের ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা দিলেও বনবিভাগের লোকজন নির্বিকার বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সচেতনমহল। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় ক‘জন অভিযোগ করেন-বনবিভাগের লোকজনের আসকারায় একই এলাকায় অনেক মূল্যবান বনভুমি অবৈধভাবে জবরদখল করে বসতবাড়ি নির্মাণ করছে। অনেকেই দখলের পর উচ্চ মূল্যে বিক্রিও করছেন। তবে বিক্রিত অর্থের একটি অংশ বনবিভাগের সংশ্লিষ্ট একটি পক্ষ পেয়ে থাকেন বলেও জানান স্থানীয় লোকজন। ফুলছড়ি রেঞ্জের রেঞ্জ অফিসার মো: জকরিয়ার কাছ থেকে বনভূমি জবরদখল করে বসতি নির্মাণের বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন-আগে একবার ওই জায়গা থেকে একাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছিল, এখনো এরকম জবরদখলের ঘটনা হয়ে থাকলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *