চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০

আব্বাস হোছাইন আফতাব রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম।

করোনাকালে কৃষকদের ধান কেটে ঘরে তোলে দিবে

প্রকাশ: ২০২০-০৪-১৯ ২০:৫১:০৮ || আপডেট: ২০২০-০৪-১৯ ২২:২৯:২২

নিজস্ব প্রতিনিধি, বীর কন্ঠ :

করোনাভাইরাসের প্রভাবে কৃষকদের অার্থিক সংকট ও দুরবস্থার কথা বিবেচনা করে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহন করেছে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা কৃষকলীগ। স্বেচ্ছাশ্রমে অস্বচ্ছল কৃ্ষকদের বিলের পাকা ধান কেটে ঘরে তোলে দেবে তাঁরা। আগামী সপ্তাহের শুরুতে তাঁরা এই কার্যক্রমটি শুরু করবেন। এই বিষয়ে জানতে চাইলে রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. এনামুল হক বলেন, ” করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে যানবাহন বন্ধ থাকায় বিভিন্ন জেলা থেকে এবার কৃষি শ্রমিকরা আসতে পারছেনা। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে। কৃষকরা খেতের পাকা ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। এসব কিছু চিন্তা করে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের নির্দেশনায় কৃষকলীগ কার্যক্রমটি শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়। কার্যক্রমটি তত্ত্বাবধান করবেন চট্টগ্রাম উত্তরজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাঙ্গুনিয়া উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম। কার্যক্রমটি বাস্তবায়নে ৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে রয়েছেন পৌরসভা কৃষকলীগের সিনিয়র সহসভাপতি শামসুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক রাসেল রাসু, সহসভাপতি মো. মাহমুদুল ইসলাম রাসেল ও উপজেলা যুবলীগ সদস্য মো. মহসিন। যুবলীগ ও ছাত্রলীগ এতে সহযোগিতা করবেন। পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডের তেরটি বিলে এই কার্যক্রম চলবে। ইতিমধ্যে ৫৩ জন অস্বচ্ছল কৃষকদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এসব অস্বচ্ছল কৃষকদের বিলের ধান আগে কাটা হবে। জানতে চাইলে চট্টগ্রাম উত্তরজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, করোনার কারনে অনেক কৃষক ঘরবন্দী। তাদের আয় রোজগারও নেই। কৃষি শ্রমিক দিয়ে ধান কেটে ঘরে তুলবেন এই সামর্থ্যও অনেকের নেই। পৌরসভা কৃষকলীগের এই উদ্যোগে সাধারণ অনেক কৃষক উপকৃত হবেন। ” পৌরসভার সৈয়দবাড়ি এলাকার কৃষক মো. নুরুদ্দিন (৪৮) বলেন, লাইগ্যা বিলে এবার তিন বিঘা জমিতে বোরো ধানের চাষ করেছেন।‘ধান পেকে গেছে। এক সপ্তাহ পর ধান কাটা শুরু করতে হবে। প্রতি বছর অন্য জেলার শ্রমিক এনে বোরো ধান কাটা হয়। এবার শ্রমিকেরা আসছেন না। তাছাড়া করোনার কারনে কোনো আয় রোজগারও নেই। খুব বিপদে পড়ে গেছিলাম। কৃষকলীগ ধান কেটে ঘরে তোলে দেবে জানিয়েছে। এখন আর কোনো অসুবিধা নেই। এই বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কারিমা আক্তারের সাথে যোগাযোগ করা হলে রাঙ্গুনিয়া পৌর এলাকায় আড়াইশ হেক্টর বোরো আবাদ হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ” কৃষকলীগের উদ্যোগটি যুগোপযোগী। এ বছর আবহাওয়া অনুকূলে ছিল। প্রাকৃতিক তেমন কোনো দুর্বিপাক হয়নি। এ জন্য উপজেলায় এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ধান পাকতে শুরু করেছে। আগামী সপ্তাহ থেকে ধান কাটা শুরু হবে। এই সময়ে উপজেলা কৃষি কার্যালয়ও কৃষকদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করবে। ” আব্বাস হোসাইন আফতাব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *