চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০

মোহাম্মদ আতিক উল্ল্যাহ মদিনা প্রতিনিধি, সৌদি আরব

করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে সৌদি সরকারের নতুন নীতিমালা

প্রকাশ: ২০২০-০৫-০৮ ১২:০৮:৪৪ || আপডেট: ২০২০-০৫-০৮ ১২:০৮:৪৮

আতিক উল্লাহ, মদিনা (সৌদি আরব)■ সৌদি সরকার ৭ই মে ২০২০ কিছু নতুন নীতিমালা প্রকাশ করেছে। এই নীতিমালা সমূহ না মানলে এর জন্য জরিমানা ও সাজার আইন করেছে। প্রিয় প্রবাসী দয়া করে কোথাও ৫ জনের বেশি একত্রিত হবেন না, আড্ডা দিবেন না)।

সৌদি আরবের সর্বত্র যেকোন প্রকার জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছেঃ

১) পারিবারিক জমায়েতঃ ঘরে, ইস্তেরাহায়, মাজরায় একের অধিক পরিবার একত্রিত হওয়া যাবেনা। এই নির্দেশনা অমান্যকারী দায়ী ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে দশ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।
২) কোন এলাকার সকলে/ কিছু মানুষ (৫ এর অধিক) কোন ঘরে, নির্মানাধীন বাড়িতে, ইস্তেরাহায়, মাজরায়, খীমায়, বিনোদন কেন্দ্রে, উন্মুক্ত স্থানে একত্রিত হওয়া যাবেনা। এই নির্দেশনা অমান্য অমান্যকারী ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে পনের হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।
৩) লেবার জমায়েতঃ কর্মীরা তাদের নিজের লেবার ক্যাম্প ছাড়া অন্য কোন ঘরে (ক্যাম্পে), নির্মানাধীন বাড়িতে, ইস্তেরাহায়, মাজরায় একত্রিত হতে পারবেনা। এই নির্দেশনা অমান্যকারী দায়ী ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে পঞ্চাশ হাজার হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।
৪) কোন শপিং মলের ভেতরে কিংবা বাইরে ৫ এর অধিক ক্রেতা সাধারন বা মলের কর্মীরা একত্রিত হতে পারবেনা। এই নির্দেশনা অমান্যকারী দায়ী ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে পঞ্চাশ হাজার হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।
৫) যেকোন ধরণের আনন্দানুষ্ঠান, শোক প্রকাশের অনুষ্ঠান, সভা- সম্মেলন এসময় নিষিদ্ধ থাকবে। এই নির্দেশনা অমান্যকারী দায়ী ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে তিরিশ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে।

(এই নির্দেশনাসমূহ একাধিকবার অমান্য করলে জরিমানার পরিমান দ্বিগুণ হবে এবং কোন প্রতিষ্ঠান করলে তা পরবর্তী তিন মাসের জন্য বন্ধ থাকবে। দুই বারের অধিক কেউ অমান্য করলে জরিমানার পরিমান আরেক গুণ বাড়বে পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানকে পরবর্তী ছয় মাসের জন্য বন্ধ করে দেয়া হবে।)

উপরোল্লিখিত জমায়েতে কেউ অংশগ্রহণ করলে কিংবা ডেকে নিয়ে গেলে তাকে প্রথমবারের মত ৫ হাজার রিয়াল জরিমানা করা হবে। পূনরায় একই অপরাধ করলে জরিমানা দশ হাজার রিয়াল হবে। এরপরে তৃতীয়বারের মত কেউ এই ধরণের নিষিদ্ধ জমায়েতে অংশ নিলে তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পাবলিক প্রসিকিউশনে প্রেরণ করা হবে।

এধরণের অবৈধ জমায়েতে যে শরীক হয়, অথবা জমায়েত আহবান করে, অথবা জমায়েতের জন্য অনুঘটক হয় তাকে আইন ভংগকারী হিসেবে গন্য করা হবে।

এমন কোন জমায়েত হতে দেখলে ৯৯৯ এ কল করে অভিযোগ জানাতে পারেন। সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন রিয়াদ বাংলাদেশ দূতাবাস কর্মকর্তা মামুনর রশিদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *