চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০

কাইছার হামিদ

বুধবার সারাদেশে ভার্চ্যুয়াল কোর্টে ১০১৩ জনের জামিন

প্রকাশ: ২০২০-০৫-১৩ ২৩:২৯:৫৫ || আপডেট: ২০২০-০৫-১৩ ২৩:৩০:০০

সারাদেশের নিম্ন আদালতে ১১৮৩ আবেদনের ভার্চ্যুয়াল শুনানি নিয়ে ১০১৩ আসামির জামিন দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৩ মে) রাতে এ তথ্য জানিয়েছেন সুপ্রিমকোর্টের মুখপাত্র মোহাম্মদ সাইফুর রহমান।     

গত ১০ মে নিম্ন আদালতের ভার্চ্যুয়াল কোর্টে শুধু জামিন শুনানি করতে নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট প্রশাসন। এ বিষয়ে ওইদিন একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন সুপ্রিমকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলা ও এর ব্যাপক বিস্তার রোধকল্পে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে আগামী ১৬ মে পর্যন্ত সব আদালতে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

‘উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ছুটির সময়ে বাংলাদেশের প্রত্যেক জেলার জেলা ও দায়রা জজ, মহানগর এলাকার মহানগর দায়রা জজ, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক, বিশেষ জজ আদালতের বিচারক, সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক, দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক, জননিরাপত্তা বিঘ্নকারী অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারকক এবং জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নিজে অথবা তার নিয়ন্ত্রণাধীন এক বা একাধিক ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা আদালত কর্তৃক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ ২০২০ এবং উচ্চ আদালতের জারিকৃত বিশেষ প্র্যাকটিস নির্দেশনা’ অনুসরণ করে শুধু জামিন সংক্রান্ত বিষয়গুলো তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে ভার্চ্যুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে নিষ্পত্তি করার উদ্দেশ্যে আদালতের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য নির্দেশ দেওয়া হলো।

এরপর সোমবার থেকে জামিন শুনানি শুরু হয়। প্রথমবারের মতো ওইদিন কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ এক আসামিকে জামিন দেন। পরের দিন মঙ্গলবার ১৪৪ আসামিকে সারাদেশে জামিন দেওয়া হয়।
বুধবার সুপ্রিমকোর্ট জানায়, ঢাকা, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর, কিশোরগঞ্জ, রাজবাড়ী, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, নোয়াখালী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ফেনী, চাঁদপুর, রাঙামাটি,খাগড়াছড়ি, রংপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, দিনাজপুর, বরিশাল (বিভাগ),রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, খুলনা, কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ, মাগুরা, নড়াইল, সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, ময়মনসিংহ,শেরপুর ও নেত্রকোনার বিভিন্ন আদালতে জামিন আবেদনগুলোর ওপর শুনানি হয়। শুনানি শেষে ১০১৩ জনকে জামিন দেওয়া হয়েছে।

তবে কক্সবাজার, লক্ষ্মীপুর, বান্দরবানে কিছু আবেদন জমা পড়লেও তার ওপর শুনানি হয়নি।

এদিকে বুধবার পর্যন্ত হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের ভার্চ্যুয়াল কোর্টে মোট তিনটি রিট আবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে একটির নিষ্পত্তি হয়েছে। বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিমের বেঞ্চে মোট জমা দেওয়া হয়েছে ১৭০টি জামিন আবেদন। এর মধ্যে ১০টি নিষ্পত্তি হয়েছে। এছাড়া বিচারপতি জেবিএম হাসানের বেঞ্চে মোট ১০টি জামিন আবেদন জমা পড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *