চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি

দীর্ঘ ৩ বছরেও শেষ হয়নি বাইশারী ফাঁরি খালের উপর নির্মিতব্য রাবার ড্যামের কাজ

প্রকাশ: ২০২০-০৭-০৩ ১৯:২৯:৩৯ || আপডেট: ২০২০-০৭-০৩ ১৯:২৯:৪২

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু|
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের রাজঘাটে ফাঁরি খালের উপর বি,এ,ডি,সি”র অর্থায়নে ৩ কোটি ৭৯ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ওয়েল এটেসি জেবি।

স্থানীয় সূত্রে জানান বিগত ২০১৮ সালের ৩ই মার্চ এ রাবার ড্র্যাম নির্মাণ প্রকল্পের কাজ উদ্ভোধন করেন পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তৎকালীন প্রতিমন্ত্রী বীরবাহাদুর (উশেসিং) এমপি। সেই থেকে কচ্ছপ গতিতে চলায় এ রাবার ড্যামের নির্মাণ কাজ দীর্ঘ ৩ বছরেও শেষ হয়নি।

এ বিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটির দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজয় ধর ও রানা বিশ্বাস জানান, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বি.এ.ডি.সি) ৭০% কাজ করার পরেও বিল দিতে অনীহা প্রকাশ করায় কাজ চালিয়ে নিতে সমস্যা হচ্ছে। তাই বি.এ.ডি.সি সার্বিক সহযোগিতা না করায় এই রাবার ড্যাম প্রকল্পের কাজ সঠিক সময়ে করা যাচ্ছে না।

তবে তারা এ প্রতিবেদককে বলেন. এখন থেকে ঠিক ভাবে কাজ হলে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে এ কাজ শেষ করা যাবে বলে আশাব্যক্ত করেন।

বাইশারী ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর বলেন.প্রায় ৩বছর পর্যন্ত এই রাবার ড্যামের কাজ চলছে কচ্ছপগতিতে তাই এভাবে কাজ চললে আরো ৩ বছরেও শেষ হবে না এ কাজ।

এলাকার সচেতন মহলের দাবী এ রাবার ড্যামটি চালু হলে শুষ্ক মৌসুমে অনাবাদী দেড় হাজার একর জমি চাষের আওতায় আসবে। তাতে লাভবান হবে অন্তত এক হাজার কৃষক পরিবার।
এ এলাকার কৃষকরা শুধু বর্ষাকালে চাষাবাদ করতে পারলেও শুষ্ক মৌসুমে পানির অভাবে অনাবাদী থাকে এই এলাকার কৃষি জমি। তাই এ রাবার ড্যামের কাজ কখন শেষ হবে সে আশা বুকে নিয়ে বসে আছে কৃষকেরা। স্থানীয়দের অভিযোগ যদি দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদার কাজে এভাবে অবহেলা করলে আরো ৫ বছরেও শেষ হবে না এ নির্মাণ কাজ।

বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আলম থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন মন্ত্রী বীর বাহাদুরের কাছে এলাকাবাসীর পক্ষ হয়ে দাবী জানানোর পর অনেক কষ্টের বিনিময় এবং মন্ত্রী মহোদয়ের প্রচেষ্টায় এর রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

ঠিকাদারের গাফিলতির কারণে কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। তিনি ও এলাকাবাসী দ্রুত সময়ে রাবার ড্যামের কাজ শেষ করার জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *