চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

admin

শিক্ষার্থীদের নৈতিক মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশ: ২০১৭-০৯-২২ ১৭:১০:৫৪ || আপডেট: ২০১৭-০৯-২২ ১৭:১০:৫৪

বীর কন্ঠ ডেস্ক : জ্ঞান অর্জনের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নৈতিক মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেছেন, নতুন প্রজন্মকে ভবিষ্যতে নেতৃত্ব দেয়ার মতো দক্ষ ও যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। নৈতিক মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে তাদেরকে গড়ে তুলতে হবে। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) সদস্য সন্তানদের মধ্যে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কৃতিশিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা এবং বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের সাধারণ জ্ঞান অনেক। তারা বিশ^মানের মেধার অধিকারী। আজকের জগৎ উন্মুক্ত, তাই বিশ^মানের শিক্ষা অর্জন করলে তারা বিশে^র যেকোন স্থানে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে পারবে। বিশ্বমানের জ্ঞান অর্জনের পাশাপাশি নৈতিকতা শক্তির ওপর বলিয়ান হয়ে দেশ ও জাতি গঠনে ভূমিকা পালনের জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। 

 

অনুষ্ঠানে ২০১৭ সালে উত্তীর্ণ এসএসসি’র ২৫ জন এবং এইচএসসি’র ১২ জনসহ ৩৭ জন কৃতিশিক্ষার্থীর হাতে পুরস্কার, সম্মাননা সনদ, ক্রেস্ট, বই ও নগদ অর্থ বৃত্তি হিসেবে তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. হাবিবুর রহমান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ বছর আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড এ আয়োজনে পৃষ্ঠপোষকতা করেন। আগামী বছরও ডিআরইউ সদস্য সন্তানদের মধ্যে আল আরাফাহ ব্যাংক পিইসি-জেএসসি এবং এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কৃতিশিক্ষার্থীদের ‘ডিআরইউ-আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক শিক্ষা বৃত্তি’ অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। ডিআরইউ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মুরসালিন নোমানী, অভিভাবকদের পক্ষে সিনিয়র সাংবাদিক মধুসূদন মন্ডল, শাহনাজ মুন্নী, শাহ মনওয়ার জাহান কবির, সংবর্ধিতদের মধ্যে তাসফিয়াহ ইলিয়াস খান, শ্রীদেব মন্ডল রাহুল বক্তব্য দেন।

 

যৌথভাবে অনুুষ্ঠান পরিচালনা করেন উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও সংগঠনের অর্থ সম্পাদক মানিক মুনতাসির এবং কার্যনির্বাহী সদস্য ও উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব সাইফুল ইসলাম। এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কৃতি শিক্ষার্থীরা হলেন- ইলিয়াস খানের মেয়ে তাসফিয়াহ ইলিয়াস খান, জাফর ওয়াজেদের মেয়ে এলমা ওয়াজেদ, মুস্তাফিজ শফির মেয়ে রূপকথা তাসনিয়া, শাহনাজ মুন্নির কন্যা জুকতা মনন, শহিদুল আলমের পুত্র তোফায়েল আলম, নিত্য গোপাল মন্ডলের পুত্র শ্রীদেব মন্ডল রাহুল, ফজলুল হকের কন্যা নুজহাত তাবাসসুম, শাহানুজ্জামানের পুত্র তানিম ইসতিয়াক, সিদ্দিকুর রহমানের পুত্র মাহির তাজওয়ার খান, রফিক উল্লাহর পুত্র আসিফ আহমেদ জয় ও কন্যা রিফাত জাহান দোলা, গিয়াস উদ্দিন আহমেদের কন্যা আথিকা আহমেদ অর্পি, শরীফুল ইসলামের পুত্র ইশমাম হাসিন রাফি, শামিমুল হকের কন্যা সাকুরা নাহার সেজুতি, জাহিদ হোসেন খোকনের কন্যা সানজিদা খাতুন জিম, ওবায়দুর রহমান শাহীনের কন্যা সুমাইয়া বিনতে শাহীন, নাসির উদ্দিন আল মামুনের পুত্র আজমাইন আল নাফি, বেলায়েত হোসেনের কন্যা নাহিদা জান্নাত ময়ূরী, সিরাজুল ইসলামের কন্যা সিরাজুম মনিরা, আলী মাহমুদের পুত্র আলী আব্দুল্লাহ তানভীর সরকার, শাহ মো. মনোয়ার জাহান কবিরের কন্যা জাহান আরা মরিয়াম সেহ্রী, হারুনুর রশীদদের পুত্র ইরতিজা হাসনাত জাহিন, আবু আল মোরসালিনের কন্যা তানফা ফেরদৌসী, মধুসুধন মন্ডলের কন্যা মৌমিতা মন্ডল কথা ও  মনোয়ারুল হকের পুত্র আজমাইনুল হক।

 

এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কৃতি শিক্ষার্থীরা হলেন- সাখাওয়াত হোসেন বাদশার মেয়ে জাসিয়া হোসেন তিশি, শামীমুল হকের পুত্র সায়হানুল হক, সৈয়দ সফির কন্যা সৈয়দা রাফিনা আহমেদ, শাহনাজ মুন্নির কন্যা যৌথ মনিসা, স্ট্যালিন সরকারের পুত্র এম সাদমান সফি প্রতিক, নাসির উদ্দিন চৌধুরীর কন্যা নুসাইবা নূরী নাসির, শরিফুল ইসলামের কন্যা সুমাইয়া ইসলাম ত্রই, আশিষ কুমার সেনের পুত্র অনিক কুমার সেন, আতাউর রহমানের কন্যা প্রমিতি রহমান, এনামুল হকের কন্যা আদিবা নাজ, মাহফুজুর রহমানের পুত্র আশরাফ মাহমুদ ও কুদ্দুস আফ্রাদের কন্যা কাশফি শরমিতা কুশাল। অনুষ্ঠানে ডিআরইউ’র সহ-সভাপতি আবু দারাদা যোবায়ের, সাংগঠনিক সম্পাদক জিলানী মিলটন, দপ্তর সম্পাদক নয়ন মুরাদ, নারী বিষয়ক সম্পাদক দিনার সুলতানা, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কাফি কামাল, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা সম্পাদক শেখ মাহমুদ এ রিয়াত, ক্রীড়া সম্পাদক মো. মজিবুর রহমান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিজান চৌধুরী, আপ্যায়ন সম্পাদক কামাল উদ্দিন সুমন, কার্যনির্বাহী সদস্য নূরুল ইসলাম হাসিব, হাবীবুর রহমান, মাইনুল হাসান সোহেল ও  আনিসুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ডিআরইউর প্রয়াত সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা তিমির দত্তের পরিবারের কাছে সংগঠনটির পক্ষ থেকে তিন লাখ টাকার অনুদানের চেক হস্তান্তর করা হয়েছে। সাগর-রুনী মিলনায়তনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের উপস্থিতিতে ডিআরইউ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা ও সাধারণ সম্পাদক মুরসালিন নোমানী প্রয়াতের স্ত্রী কল্পনা দত্তের কাছে কমিটির পক্ষ থেকে এই অনুদানের চেক তুলে দেন। এসময় প্রয়াতের মেয়ে মন্দিরা দত্ত, সংগঠনের সিনিয়র সদস্য মধুসূদন মন্ডলসহ ডিআরইউর বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি, সম্পাদকমন্ডলী ও কার্যনির্বাহী সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 

– মানবজমিন

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *