চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

admin

খালেদা জিয়ার মামলার শুনানিকালে আইনজীবীর মৃত্যু

প্রকাশ: ২০১৭-১০-০৫ ১৭:২৪:০০ || আপডেট: ২০১৭-১০-০৫ ১৭:২৪:০০

বীর কন্ঠ ডেস্ক : আদালত প্রতিবেদক : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার শুনানিকালে ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট টিএম আকবর মারা গেছেন।

 

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে পুরান ঢাকার বকশীবাজারস্থ অস্থায়ী ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো : আকতারুজ্জামানের আদালতে এ ঘটনা ঘটে।

 

জানা যায়, বৃহস্পতিবার মামলার কার্যক্রমের শুরু খালেদা জিয়া চিকিৎসার জন্য বিদেশ থাকায় আদালতে হাজির হতে না পারায় তার পক্ষে সময়ের আবেদন করেন সানাউল্লাহ মিয়া। আদালত মঞ্জুর করেন। এরপর ওই মামলার অপর আসামি ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খানের পক্ষে মামলার প্রথম তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক নুর আহমেদকে জেরা করতে যান টিএম আকবর। বেলা সাড়ে ১১টা থেকে তিনি ওই কর্মকর্তাকে জেরা শুরু করেন। জেরার এক পর্যায়ে তিনি অসুস্থতাবোধ করে ফ্লোরে পড়ে যান। তাৎক্ষনিকভাবে শাহবাগস্থ বারডেম হাসপাতালে তাকে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। এ আইনজীবী অসুস্থ হয়ে পড়ার পর বিচারক ড. মো. আকতারুজ্জামান এজলাস থেকে নেমে যান এবং পরবর্তীতে মৃত্যুর খবর আসার পর শুনানি আগামী ১২ অক্টোবর পর্যন্ত মূলতবি করেন।

 

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ৮ আগস্ট খালেদা জিয়াসহ চার জনের বিরুদ্ধে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলাটি দায়ের করে দুদক। এ মামলায় ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি আদালতে চার্জশিট দাখিল করে দুদক।

 

এ মামলার আসামি বিএনপি নেতা হারিছ চৌধুরী এবং তার তৎকালীন একান্ত সচিব জিয়াউল ইসলাম মুন্না ও ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।

 

এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলাটি দায়ের করে দুদক। ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় এ মামলা দায়ের করা হয়।

 

২০০৯ সালের ৫ আগস্ট দুদক আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে।

 

চার্জশিটে খালেদা জিয়া, তার বড় ছেলে তারেক রহমান, সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল ওরফে ইকোনো কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমানকে আসামি করা হয়।

 

দুই মামলায় খালেদা জিয়াসহ অপর আসামিদের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ তৎকালীন বিচারক বাসুদেব রায় চার্জগঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *