চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯

মিজবাউল হক চকরিয়া অফিস

চকরিয়ায় ৮ম শ্রেণির ছাত্রীর বাল্য বিবাহ বন্ধ করে দিলো প্রশাসন

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-০১ ২৩:৩০:১১ || আপডেট: ২০১৯-০৯-০১ ২৩:৩০:১৯

চকরিয়া অফিস : কনের বাড়িতে গিয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দিলেন উপজেলা তথ্য কর্মকর্তা মাসুদা আক্তার। রবিবার দুপুরে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন। পরে দু’পক্ষের অভিভাবকদের ইউএনও কার্যালয়ে এনে মুচলেকা নিয়ে পরে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের উত্তর ঘুনিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। চকরিয়া উপজেলা তথ্য কর্মকর্তা মাসুদা আক্তার বলেন, রবিবার সকালে গোপন সূত্রে খবর আসে উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের উত্তর ঘুনিয়া এলাকার বাসিন্দা দেলোয়ার হোসেনের মেয়ে ও দিগরপানখালী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রীর সাথে সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) বাল্য বিয়ের হতে যাচ্ছে একই এলাকার বদিউল আলমের ছেলে মোহাম্মদ সাগরের। রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) রাতে বর এবং কনের বাড়িতে আয়োজন চলছিল মেহেদী অনুষ্ঠানের। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান স্যারকে জানালে তিনি আমাকে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করার নির্দেশ দেন। চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নে বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে তথ্য অফিসের কর্মকর্তা মাসুদা আক্তারকে বিয়ে বন্ধ করে উভয়পক্ষের অভিভাবকদের ইউএনও কার্যালয়ে নিয়ে আসার নির্দেশ দিই। পরে অভিভাবকরা আর বাল্যবিয়ে দিবেনা মর্মে মুচলেকা দিলে পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *